প্রাণ ফিরছে ঢাবিতে, আজ উন্মুক্ত গ্রন্থাগার

1
56

মোহাম্মদ মাকসুদুল হাসান ভূঁইয়া রাহুলঃ
সময়ের হিসেবে দীর্ঘ ১৮ মাস! করোনা মহামারীর কারণে বন্ধ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় (ঢাবি)। বিশাল ক্যাম্পাস জুড়ে ভীষণ এক শূন্যতা! শিক্ষার্থীদের পদচারণায় সদা প্রাণোচ্ছল ঢাবি ক্যাম্পাস প্রাঙ্গণের এই নীরবতা বড্ড বেমানান! তবে আশার খবর হলো, করোনার প্রকোপ বেশ কমে আসায় আগামী ৫ অক্টোবর খুলবে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়। খোলার প্রস্তুতির অংশ হিসেবে আজ (২৬ সেপ্টেম্বর, ২০২১) খুলেছে ঢাবির কেন্দ্রীয় ও আবাসিক হলের গ্রন্থাগারগুলো। পাশাপাশি খোলা হয়েছে বিভাগীয় সেমিনার কক্ষগুলোও।

গ্রন্থাগার ও সেমিনার কক্ষগুলো খোলা হলেও সকল শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থীরা আপাতত এগুলো ব্যবহারের সুযোগ পাচ্ছেন না। শুধুমাত্র স্নাতক চতুর্থ বর্ষ ও মাস্টার্স ফাইনাল পরীক্ষার্থীরাই বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রত্বের বৈধ পরিচয়পত্র ও অন্তত করোনার এক ডোজ টিকা নিয়েছেন এমন ছাড়পত্র দেখিয়ে এবং যথাযথ স্বাস্থ্যবিধি মেনে গ্রন্থাগার-সেমিনার কক্ষ ব্যবহার করতে পারবেন। অন্যান্য বর্ষের শিক্ষার্থীরা ধাপে ধাপে এই সুযোগ পাবেন।

করোনার প্রকোপ কমলেও, এই ভাইরাস পুরোপুরি শেষ হয়ে যায় নি। তাই সতর্কতা হিসেবে গ্রন্থাগার-সেমিনার কক্ষের আসন সংখ্যা আগের চেয়ে কমানো হয়েছে এবং কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগারের সামনে বৃত্ত এঁকে সামাজিক দূরত্বের মাপ দেয়া হয়েছে। গ্রন্থাগার খোলার পূর্বে শিক্ষার্থীরা প্রবেশের জন্য লাইন করলে বৃত্তাকার ঘরগুলোতে দাঁড়িয়ে নির্দিষ্ট দূরত্ব বজায় রাখতে হবে।

প্রতিদিন সকাল ১০টা থেকে বিকেল ৫টা পর্যন্ত খোলা থাকবে গ্রন্থাগার ও সেমিনার কক্ষগুলো। এছাড়া প্রবেশপথে তাপমাত্রা পরিমাপক যন্ত্র ও হ্যান্ড স্যানিটাইজেশনের ব্যবস্থা করা হয়েছে। তবে বাইরের কোনো বইপত্র নিয়ে প্রবেশ করা যাবে না। বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধের সঙ্গে সঙ্গে শিক্ষার্থীদের পরিবহনকারী বাসগুলোও এতদিন বন্ধ ছিল। তবে গ্রন্থাগারে পড়তে আসা শিক্ষার্থীদের সুবিধার্থে সীমিত পরিসরে চলাচল করবে বিশ্ববিদ্যালয়ের বাস।

উল্লেখ্য, গত বছরের মার্চ মাসের দিকে দেশে করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ শুরু হয়। শিক্ষার্থীদের স্বাস্থ্য সুরক্ষার কথা ভেবে দেশের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলো সেসময় বন্ধ ঘোষণা করা হয়, বন্ধ হয় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়। অবশেষে আজ ঢাবির কেন্দ্রীয় ও হলগুলোর গ্রন্থাগার এবং বিভাগীয় সেমিনার কক্ষগুলো শিক্ষার্থীদের জন্য উন্মুক্ত হওয়ার মধ্য দিয়ে ৫ অক্টোবর বিশ্ববিদ্যালয় খোলার প্রস্তুতি শুরু হলো। সুদীর্ঘ দেড় বছর পর আজ গ্রন্থাগার ও সেমিনার কক্ষ পড়াশোনার জন্য খুলে দেওয়ার বিষয়টি যেনো প্রাণ ফিরালো এতদিনের নিস্তব্ধ ঢাবিতে! ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের জন্য নিঃসন্দেহে এটি স্বস্তির খবর!

1 COMMENT

  1. বৈশ্বিক মহামারীর অনুকুল পরিস্থিতে এটি নিসন্দেহে খুশির খবর। শিক্ষার্থীরাই শিক্ষাঙ্গনের প্রান আর তার জন্য চাই প্রানের স্পন্দন। বিশ্ববিদ্যালয়ের গ্রন্থাগার ও হল গুলো উন্মুক্ত করার মাধ্যমে সেই প্রান চাঞ্চল্য আবার ফিরে আসবে আশা করছি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here