ঈদে অসহায়দের পাশে ‘ফিলান্থ্রফিস্ট অব বাংলাদেশ’

0
155

 

মো. নাঈমুল হাসান দূর্জয়ঃ
করোনা মহামারীতে টালমাটাল এখন পুরো বিশ্ব। বাংলাদেশেও ভয়াবহ রূপ নিয়েছে এই মহামারী। পরিস্থিতি বিবেচনায় দেশ ও জনগণের বৃহৎ স্বার্থে দেশে লকডাউন ঘোষণা করেছে সরকার। তবে এ পরিস্থিতিতে বেশ কঠিন অবস্থায় পড়েছে খেটে খাওয়া মানুষগুলো।

দিন আনে, দিন খায়- এমন নিম্নবিত্ত পরিবারগুলো, এমনকি সীমিত আয়ের অনেক মধ্যবিত্ত পরিবারও করোনাকালীন সময়ে বিপাকে আছে। একদিকে জীবন, অন্যদিকে জীবিকা-এ দুইয়ের দোলাচালে তাদের জীবন আজ মন্থর! তবে করোনায় বিপদগ্রস্ত পরিবারগুলোকে যথাযথ সাহায্য-সহযোগিতা দেয়ার প্রয়াস চালিয়ে যাচ্ছে সরকার। পাশাপাশি বিভিন্ন সামাজিক সংগঠন, বেসরকারি সংস্থা এবং ব্যক্তিগত পর্যায়েও অনেকে অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছেন।

করোনায় বিপদগ্রস্ত পরিবারগুলোর সঙ্গে ঈদ-উল-আযহার আনন্দ ভাগাভাগি করে নিতে এগিয়ে এসেছে ‘ফিলান্থ্রফিস্ট অব বাংলাদেশ (পিওবি)’ নামের একটি স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন। ‘ঈদ আনন্দ ২.০’ প্রজেক্ট নিয়ে অসহায় ২৫ টি পরিবারকে ‘ঈদ উপহার’ দিয়েছে সংগঠনটি।

সংগঠনটির নড়াইল জেলা শাখার স্বেচ্ছাসেবীরা পিওবি’কে জানায় যে তারা জেলাটির অসহায় কিছু পরিবারের পাশে দাঁড়ায়ে চায়। তাদের এই উদ্যোগকে স্বাগত জানিয়ে ‘ফিলান্থ্রফিস্ট অব বাংলাদেশ’ কাজ শুরু করে। ফলশ্রুতিতে ২৫ টি পরিবারের জন্য তারা ঈদ উপহার সংগ্রহ করেন এবং পরিবারগুলোর মাঝে বিতরণ করেন।

উপহারের মধ্যে ছিল- চাল, চিনি গুড়া চাল, ডাল, সোয়াবিন তেল, দুধ, চিনি, নুডুলস্, লাচ্ছা সেমাই, রাঁধুনী সেমাই, কেক, চিপস্, সাবান, স্যালাইন, প্যারাসিটামল ট্যাবলেট, ফেস মাস্ক এবং বাচ্চাদের জন্য খাতা কলম৷ করোনা মহামারীর নাজুক এই সময়ে এসব উপহার সামগ্রী পেয়ে পরিবারগুলো পিওবি’র স্বেচ্ছাসেবীদের কাছে নিজেদের আনন্দ প্রকাশ করেন এবং কৃতজ্ঞতা জানান।

অসহায়দের পাশে দাঁড়ানো এ পৃথিবীর সুন্দরতম একটি কর্ম নিঃসন্দেহে! ‘ফিলান্থ্রফিস্ট অব বাংলাদেশ’ সংগঠনটি নিয়মিতই বিপদগ্রস্তদের জন্য কাজ করে যাচ্ছে। গত বছর সংগঠনটির ‘পিওবি মিশন-০১, খোকন মামার ঈদ আনন্দ’ নামের অসাধারণ উদ্যোগটি বেশ প্রশংসিত হয়েছিল।

“মানুষ মানুষের জন্য, জীবন জীবনের জন্য”- প্রয়াত ভুপেন হাজারিকার বিখ্যাত গানের এই লাইনটিকে নিজেদের ইতিবাচক কর্মের মাধ্যেম প্রতিনিয়তই তুলে ধরছেন ‘ফিলান্থ্রফিস্ট অব বাংলাদেশ’র এক ঝাঁক মহৎপ্রাণ তরুণ। তাঁদের নেয়া অসাধারণ সব উদ্যোগের ধারাবাহিকতা বজায় থাকবে এবং অসহায়দের মুখে হাসি ফুটবে এমনটাই প্রত্যাশা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here